25th April Returns. It’s A Special Day.

Her kitchen in our Calcutta mezzanine apartment, as she left it behind, years ago.
Her kitchen in our Calcutta mezzanine apartment, as she left it behind, years ago.

(English text below.)

২৫শে এপ্রিল আমার জীবনের একটা বিশেষ দিন। এদিনটা আমার খুব প্রিয়। আমার মা যখন বেঁচে ছিল, তখন বন্ধুরা আর আত্মীয়রা সব আসত আমাদের বাড়ি সন্ধেবেলা, আর মা তাদের ভালো ভালো রান্না করে খাওয়াত। আমার পছন্দের জিনিষ রান্না করত সেদিন। এই যেমন, ঝিঙেপোস্ত, পোলাও, কাঁচা আমের অম্বল, পাঁঠার মাংস, কিসমিস দেওয়া পায়েস — এই সব। মার রান্নার খ্যাতি ছিল খুব। এখন আমার বউ এসব রান্না করে আমাকে খাওয়ায় এদিনে। অনেক কিছু জীবনে হারিয়েছি, আবার অনেক কিছু পেয়েওছি। এখন, এত বছর আমেরিকায় থাকার পরে, আমি আমার স্মৃতিকথা “ঘটিকাহিনী” লিখতে আরম্ভ করেছি কয়েকজন বিশেষ বন্ধু ও বান্ধবীর অনুরোধে-উপরোধে। এই সংখ্যায় আমার মায়ের মৃত্যুর কথা একটু লিখেছি, যতটা সম্ভব ভাবপ্রবণতা বা সেন্টিমেন্ট বর্জন করে। আশা করি আপনারা পড়বেন। “ঘটিকাহিনী”র প্রথম খন্ড — “প্রথম জন্ম” — ডিসেম্বর মাসের শেষ দিকে কলকাতায় প্রকাশিত হবার কথা হচ্ছে। যদি সত্যি সব কিছু ঠিকমত হয়, তাহলে অনুষ্ঠানে আপনাদের আসবার নিমন্ত্রণ থাকবে।

(English text below.)

___________________________________________

25th April is a special day in my life. I am fond of this day. When my mother was alive, my friends and relatives would gather together at our home in the evening, and mother would cook delicious dishes to treat them. She cooked items that I liked. Indian and Bengali dishes such as khus khus paste with green luffa, spiced fried rice or Polao, a sweet sour watery chutney with green mango, goat meat curry, a milk dessert with raisins, etc. She was quite well known for her cooking abilities. Now, my wife Mukti cooks these items on this day.

I have lost many things in my life, yet, I have gained a lot of things too. Now, after having spent so many years in America, upon insistence of some friends, I’ve started writing my memoir. I titled it “Ghotikahini,” or the tale of a Ghoti (or a Bengali from West Bengal). In the episode just published, I have written about the death of my mother, with an effort not to make it too emotional or sentimental. I hope you read it.

The first volume of “Ghotikahini” — entitled “First Life” — is scheduled to be published from Calcutta in late December. If it really happens as planned, I shall invite you to attend the ceremony.

My father is now 91 years old. She was 54 when mother died.
My father is now 91 years old. He was 54 when mother died. The woman sitting just behind me is my only surviving aunt Sova. The other person is Jamuna, a woman who has been with us as household help for many years.

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / Change )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / Change )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / Change )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / Change )

Connecting to %s